TitBut


সত্যিকারের ইনসেস্ট
 
Notifications
Clear all

সত্যিকারের ইনসেস্ট

 Anonymous
(@Anonymous)
Guest

Quote
Posted : 08/05/2011 11:57 pm
 Anonymous
(@Anonymous)
Guest

আমাদের পাশের বাসায় ছিল খালার বাসা।তাই ছোটবেলা থেকেই খালার বাসা আর নিজের বাসা পার্থক্য বুঝতাম না।সারাদিনের অর্ধেক বেলাই খালার বাসায় থাকতাম। আমি ছিলাম পাকনা মানে বাল উঠার আগেই ফালানোর চিন্তা করতাম।আশেপাশের মহিলাদের দেখেই আমার নারীদেহ পরিচয় মানে আমি ইনসেস্ট ভক্ত।
খালা খালু আর ২ খালাতো বোন ঐ বাসায়।এক খালাত বোন ৫ বছরের বড় আরেকটা আমার ৩ বছরের ছোট।আমি খেলতাম ছোটবোন স্বর্নার সাথে তবে বড়বোন রত্না আপু প্রায়ই আমাদের সাথে খেলতো। একদিন রত্না আপু স্কুলে গেছে ,আমি আর স্বর্ণা খেলতেছি।খেলতে খেলতে স্বর্ণার উপর ঘর মুছার ময়লা পানি ফেলে দেই তখন সে আমারে কতক্ষন খামচিটামছি দিয়ে গোছল করতে ঢুকলো।আমি বাসায় একা, খালাম্মা ঘুমায়। আমি রুমে রুমে ঘুরতে ঘুরতে দেখি খালাম্মা কাৎ হয়ে ঘুমিয়ে আছে আর তার শাড়ি অনেক উপরে রান পর্যন্ত উঠে গেছে।আমার নজর গেল ঐ উদাম রানে।বুক ধক ধক করতে লাগলো।জীবনে কোনদিন বড় কোন মহিলার গোপন অঙ্গ দেখি নাই।পুরা শরীর গরম হয়ে গেল।আস্তে আস্তে আমি খাটের কোনায় যেয়ে উকি দিয়ে শাড়ির ভিতরে দেখার চেষ্টা করলাম।বাদামি রান ভেতরে যেয়ে অন্ধকার হয়ে গেছে। আমি বসে,দাড়িয়ে,কাৎ হয়ে,সোজা হয়েও দেখতে পারতেছি না।আমার নুনু শক্ত,বুক ধক ধক করতেছে মাথা কাজ করতেছে না।আর খালাম্মার মত মাঝবয়সী জাস্তি মহিলার নুনু দেখার এত বড় সুযোগ মিস করার কোন ইচ্ছাই ছিল না তাই সাহস করে শাড়িটা ধরে উচা করলাম।কাৎ হয়ে শুয়েছিল তো আর আমি এ্যাপ্রোচ করছি পিছন থেকে তাই প্রথমবার এক ঝলকের মত কি দেখলাম বুঝি নাই তবে অনেক ভাজ দেখলাম শুধু। তাও একটু তৃপ্তি পাইলাম।তাড়াতাড়ি বাথরুমের সামনে যেয়ে কান পেতে বুঝলাম স্বর্ণা এখনো গোসল শুরু করে নাই,মনে হয় হাগু করতেছিল।তাই আমি আবার ফিরে আসলাম খালাম্মার কাছে।এবার আরো বেশি সাহস করে শাড়ি ধরলাম ,একটু উঠাইছি তখন হঠাৎ খালাম্মা নড়ে উঠলো,আমি দ্রুত খাটের নিচে বসে পড়লাম।কিন্তু বুঝলাম খালাম্মা উঠে নাই বরং আমার অর্ধেক উঠানো শাড়ি ওনার নড়াচড়ায় আরো ঢিল হয়ে গেছে।এবার আর দেরী না করেই শাড়ির কোনা ধরে আস্তে আস্তে পুরা পাছাটা উদাম করে ফেললাম।
মামু কি আর কমু,বাদামী এবং অনেক চওড়া একটা পাছা।আর মাঝখানটা পুরা গিরিখাদের মত গভীর।তাতে আবার মাঝারি সাইজের বালে ভর্তি হওয়ায় পুরা পাহাড়ি উপত্যকার মত লাগলো।জীবনের প্রথম বড় মহিলার নুনু দেখতে যেয়ে পাছা দেখলাম।খালাম্মার যেই পাছার ফুটা ঐটা একটা ৫ টাকার কয়েনের সমান বড়।খুব ইচ্ছা করতেছিল একটু আঙ্গুল দিয়ে গুতা দিতে কিন্তু ভয়ে দিলাম না তবে আলতো করে বালগুলো ছুইলাম।খুব কাছে মুখ নিয়ে পাছা আর পাছার ফুটা দেখলাম,কাঁচা মাংসের ঘ্রান পাইলাম জীবনের প্রথম।এর বেশি কি করতে পারি? আমার নুনুটা তো খুব শক্ত হয়ে আছে।আমি সেটা আস্তে আস্তে খাটের কোনার তোষকে ডলতে লাগলাম আর একদৃষ্টিতে খালাম্মার পাছা দেখতে লাগলাম।
হঠাৎ করেই দেখি আমার নুনু দিয়ে গরম অনেক পানি বের হয়ে গেল।আমার হাফপ্যান্ট ভিজে গেল তাই একটু ভয় পেলেও খুব শান্তি লাগতেছিল।মনে পড়লো স্বর্না গোছল করে বের হতে পারে তাই দ্রুত খালাম্মার শাড়িটা একটু নিচে নামায় দিয়ে আমি দৌড়ে আমার বাসায় চলে আসলাম।বাসায় এসে প্যান্ট চেন্জ করে আবার খালাম্মাদের বাসায় গেলাম আর স্বর্ণার সাথে খেললাম।ঘন্টাখানে� � পরে খালাম্মা ঘুম থেকে উঠে আমাদের রুমে আইসা বলে কি করছ তোরা? আমি তো ভয় পেয়ে গেলাম,মনে হইলো খালাম্মা টের পেয়ে গেছে।কিন্তু তেমন কিছুই বললো না।আমিও আস্তে আস্তে স্বাভাবিক হইলাম তবে সেই যে প্রথম পাছা দেখলাম আর খেচা শিখলাম তা মনে করে আজো আনন্দিত হই।
এই খালাম্মার পরিবারেই আমার অনেক যৌনঅভিজ্ঞতা হইছে।

ReplyQuote
Posted : 08/05/2011 11:57 pm
CONTACT US | TAGS | SITEMAP | RECENT POSTS | celebrity pics